এনআইডি ও নিবন্ধন ছাড়া টিকা নয় : স্বাস্থ্য বিভাগপরীমনি-রাজ ৮ দিনের রিমান্ডে ফাইজারের আরও ৬০ লাখ টিকা আসছে২ কোটি ২৯ লাখ টাকা ভ্যাট দিলো গুগলগত ২৪ ঘণ্টায় করোনা দেশে একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু ২৬৪ জন
No icon

জরুরি বিষয় নিষ্পত্তি বিশেষ ব্যবস্থায়

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার প্রেক্ষাপটে আজ বৃহস্পতিবার থেকে আগামী ৭ জুলাই পর্যন্ত সরকার সারাদেশে কঠোর লকডাউন ঘোষণা করেছে। এ কারণে সুপ্রিমকোর্টসহ দেশের সব আদালতে স্বাভাবিক বিচারকাজ বন্ধ থাকবে। তবে জরুরি মামলা নিষ্পত্তির জন্য আজ থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতির আদালত, হাইকোর্ট বিভাগের তিনটি একক বেঞ্চ এবং সারাদেশে সব জেলায় চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একজন করে ম্যাজিস্ট্রেট, মহানগর এলাকায় চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একজন করে ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবেন। তবে এই সময়ে আদালতের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কর্মস্থল ত্যাগ না করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এসব বিষয়ে গতকাল বুধবার সুপ্রিমকোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল মো. আলী আকবরের স্বাক্ষরে পৃথক পৃথক বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে।

আপিল বিভাগ বসবেন ৬ ও ৭ জুলাই

এদিকে লকডাউনের মধ্যে আপিল বিভাগের বিচারপতিরা আগামী ৬ ও ৭ জুলাই নিজ নিজ বাসায় অবস্থান করে ভার্চুয়ালি আদালত চালু রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। ওই দুদিন ফাঁসির দ-প্রাপ্ত আসামিদের জেল আপিল মামলা শুনানি করা হবে। এ জন্য সংশ্লিষ্ট আইনজীবীদের মামলার নথি নিজ নিজ বাসায় নিয়ে রাখতে বলা হয়েছে। আইনজীবীদেরও বাসায় অবস্থান করে মামলায় শুনানি করতে বলা হয়েছে। আর এ জন্য আপিল বিভাগের দুজন কর্মকর্তাকেও বাসায় বসে আদালতে যুক্ত থাকতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে আপিল বিভাগের চেম্বার আদালতে শুনানিসংক্রান্ত বিষয়ে আইনজীবীদের সুপ্রিমকোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল, আপিল বিভাগ ও হাইকোর্ট বিভাগের রেজিস্ট্রার এবং সুপ্রিমকোর্টের স্পেশাল কর্মকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।