শিক্ষা আইন দ্রুত মন্ত্রিপরিষদে পাঠানো হবে: শিক্ষামন্ত্রীবিধিনিষেধ বাড়বে কিনা পরিস্থিতি দেখে সিদ্ধান্ত : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রীজাতিসংঘে ভোটাধিকার ফিরে পাচ্ছে ইরানপিএসসির সব পরীক্ষায় অংশ নিতে লাগবে টিকার সনদঐতিহাসিক গণঅভ্যুত্থান দিবস আজ
No icon

জ্বালানি তেলের দাম কমাতে কাজ করছে সরকার

বিশ^বাজারে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের দাম এখন নিম্নমুখী। বাজার বিশ্লেষকরা বলছেন, সামনের দিনগুলোয় জ্বালানি তেলের দাম আরও কমার সম্ভাবনা রয়েছে। জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা বলছেন, জ্বালানি তেলের দাম আরও কমতে থাকলে বাংলাদেশেও কমানো হতে পারে। এ বিষয়ে সরকারের সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলো কাজ করছে বলেও জানান দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা।দেশের বাজারে জ্বালানি তেলের দাম কমলেই পরিবহন ভাড়া, নিত্যপণ্যের দাম কমবে কিনা তা নিয়ে সংশয় রয়েছে। দেশে কোনো জিনিসের দাম বাড়লে কমার নজির খুব একটা নেই। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, দেশের বাজারে পণ্যমূল্য একবার বাড়লে তা স্থির হয়ে যায়। আর সহজে কমে না। বিশেষ করে পরিবহন ভাড়া একবার বাড়লে আর কমে না। সরকারের উচিত হবে- জ্বালানি তেলের দাম কমানোর সঙ্গে সঙ্গে পরিবহন ভাড়া কমানোর ঘোষণা দেওয়া, যেন বিশ^বাজারে তেলের দাম

কমার সুফল সাধারণ মানুষ পায়। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির সঙ্গে মানুষের সামগ্রিক জীবনযাত্রার ব্যয়ের সম্পর্ক রয়েছে। সাধারণ মানুষের কথা বিবেচনা করে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত।জ্বালানি বিভাগ সূত্রে জানা যায়, বিশ^বাজারে জ্বালানি তেলের দাম কমার বিষয়টি নিয়ে ইতোমধ্যে জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের মধ্যে অনুষ্ঠিত বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের নীতিনির্ধারকরা আরও কিছু সময় অপেক্ষা করে আন্তর্জাতিক বাজার পর্যবেক্ষণের পক্ষে মতো দিয়েছেন। একই সঙ্গে বিশ^বাজারে জ্বালানি তেলের দাম আরও কমলে কী প্রক্রিয়ায় দেশের বাজারে দাম কমানো যায় তা নিয়ে কাজ করছেন।বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের (বিপিসি) কর্মকর্তারা বলছেন, দেশে প্রচলিত জ্বালানি তেলের মধ্যে কিছু তেলের দাম সরাসরি বিপিসি নিয়মিত বৈঠক করে সমন্বয় করে। ডিজেল-অকটেনসহ কিছু জ্বালানির দাম সরাসরি মন্ত্রণালয় নির্ধারণ করে। বিপিসির কর্মকর্তারা বলছেন, বিশ^বাজারে জ্বালানি তেলের দামের কী অবস্থা সামগ্রিক তথ্য প্রতিনিয়ত মন্ত্রণালয়কে জানানো হয়। এখন তেলের দাম সমন্বয়ের বিষয়টি মন্ত্রণালয় ঠিক করবে।

তবে বিপিসির কর্মকর্তারা স্বীকার করেন, বিশ^বাজারে জ্বালানি তেলের দাম কমতে শুরু করেছে। সেই কমার প্রভাব বাংলাদেশের বাজারে পড়তে কিছুটা সময় লাগবে। যুক্তি হিসেবে কর্মকর্তারা বলছেন, বাংলাদেশের বাজারে যে দামে তেল বিক্রি করা হয়, সেই দামের তুলনায় এখনো বিশ^বাজারে তেলের দাম বেশি। বিশেষ করে ডিজেলের দাম এখনো কিছুটা বেশি। তবে কর্মকর্তারা বলছেন, তেলের দাম আরও কিছুটা কমলে সরকারের নীতিনির্ধারকরা বিষয়টি নিয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে।বিশ^বাজারে তেলের দাম কমা প্রসঙ্গে বিপিসির এক কর্মকর্তা বলেন, মার্কিন বাজারের কোথাও কোথাও তেলের দাম কমছে। বাংলাদেশ মূলত তেল কিনে সিঙ্গাপুরসহ মধ্যপ্রাচ্যের মার্কেট থেকে। সেখানে এখনো তেলের দাম বেশি। দাম কমার যে কথা বলা হচ্ছে তা অনেক বেশি বেড়ে গিয়ে আস্তে আস্তে কমছে। তবে যে পরিমাণ কমছে, সেটি বাংলাদেশের বাজারের সঙ্গে হিসাব করলে এখনো বেশি।