বিশ্ববাজারে টানা ৬ সপ্তাহ কমলো জ্বালানি তেলের দামওমিক্রন নিয়ন্ত্রণে ২৩ সুপারিশরাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে আটক ৭৫প্রতিবেশীর ঘরে অস্ত্র ঢোকালে যুদ্ধ বাধবে: যুক্তরাষ্ট্রকে রাশিয়া৯ হাজার কোটি টাকার প্রকল্পে ঢেলে সাজানো হচ্ছে ঢাবি
No icon

লোকসান দেখিয়ে বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির উদ্যোগ

লোকসান দেখিয়ে আবারও বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি)। সংস্থাটি বলছে প্রতিনিয়ত তাদের লোকসান বাড়ছে। গত এক অর্থবছরেই লোকসান হয়েছে প্রায় সাড়ে ১১ হাজার কোটি টাকা। এ ছাড়া এ যাবৎ পঞ্জিভূত লোকসান রয়েছে আরও ৬২ হাজার কোটি টাকা। বছরের পর বছর লোকসান দিয়ে আসছে সরকারি গুরুত্বপূর্ণ সংস্থা বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি)। সরকারি-বেসরকারি বিদ্যুৎকেন্দ্র থেকে বিদ্যুৎ কিনে তা ছয়টি বিদ্যুৎ বিতরণ কোম্পানির কাছে বিক্রি করে থাকে পিডিবি। বিতরণ কোম্পানিগুলো সেই বিদ্যুৎ দেশের প্রায় সোয়া চার কোটি গ্রাহকের কাছে বিক্রি করে। তবে বিদ্যুৎ বিতরণ কোম্পানিগুলো লাভে থাকলেও ক্রয় ও বিক্রয়ের মধ্যে ফারাক থাকায় প্রতিবছর পিডিবি লোকসানে ডুবছে।সর্বশেষ নিরীক্ষিত হিসাব অনুযায়ী ২০২০ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত সংস্থাটি ৬২ হাজার ৪৬ দশমিক ২০ কোটি টাকার পুঞ্জিভূত ক্ষতির মুখে পড়েছে। পিডিবি সূত্রে জানা যায়, ২০২০-২১ অর্থবছরে পিডিবি আরও প্রায় সাড়ে ১১ হাজার কোটি টাকা লোকসান দিয়েছে। পিডিবির এক কর্মকর্তা জানান, নতুন করে বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। তবে জ;ালানি বিশেষজ্ঞরা বলছেন- লোকসানের অজুহাতে এভাবে দাম বাড়ানো উচিত নয়।

এ বিষয়ে ভোক্ত অধিকার সংগঠন ক্যাবের জ;ালানি উপদেষ্টা ড. শামসুল আলম বলেন, লোকসানের অজুহাত দেখিয়ে এ পর্যন্ত আন্ত ১২ বার দাম বাড়িয়েছে পিডিবি। তবু লোকসান কমছে না। তিনি বলেন, লোকসানের অজুহাতে দাম বাড়ানো উচিত নয়। বরং বিদ্যুৎ খাতের ভুলনীতি ও দুর্নীতির কারণেই দাম বাড়ছে। তিনি বলেন, এখনো ব্যয়বহুল তেলভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলো থেকেই বিদ্যুৎ কেনা হচ্ছে। পরিকল্পনা অনুযায়ী বেজড লোড বা সাশ্রয়ী বিদ্যুৎকেন্দ্র উৎপাদনে আনতে পারেনি। কোনো কোনো বিদ্যুৎকেন্দ্র উৎপাদনে আনলেও সেটি গ্রিড সংকটে জাতীয় গ্রিডে দিতে পারছে না। তিনি বলেন, মূলত ভুল পরিকল্পনা ও দুর্নীতির কারণেই বারবার বিদ্যুতের দাম বাড়িয়ে জনগণের ওপর দায় চাপানো হচ্ছে।