বাণিজ্যচুক্তি বাতিল নয়, থাকবে নিষেধাজ্ঞাও: চীন প্রসঙ্গে বাইডেনভুয়া সনদে চিকিৎসক হিসেবে নিবন্ধন : ১৪ জনের বিরুদ্ধে মামলাপ্রথম ধাপে ভাসানচর যাচ্ছে ৬শ' রোহিঙ্গা পরিবার!ইয়েমেনে প্রতি ১০ মিনিটে মরছে একটি শিশুঢাকায় আসার সম্মতি দিয়েছেন এরদোগান
No icon

বাংলাদেশে আইনি লড়াইয়ে নামছে ফেসবুক

ফেসবুক ডটকম ডটবিডি নামের একটি দেশি ডোমেইন খুলেছে এ ওয়ান সফটওয়্যার লিমিটেড নামে একটি বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান। এরপর প্রতিষ্ঠানটি ফেসবুক কর্তৃপক্ষের কাছে ৬ মিলিয়ন ডলার দাবি করেছে। এ কারণে ওই প্রতিষ্ঠানের ওপর স্থায়ী নিষেধাজ্ঞা চেয়ে বাংলাদেশের আদালতে আইনি লড়াইয়ে নামার ঘোষণা দিয়েছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।আইনি লড়াইয়ে নামতে ইতোমধ্যে আইনজীবীও নিয়োগ দেয়া হয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার মোকছেদুল ইসলামকে হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। তার সঙ্গে রয়েছেন আরও দুই আইনজীবী। তারাও ওই আইনজীবীর প্যানেলে কাজ করবেন। তারা হলেন- আইনজীবী আরিফুল হক ও সুদীপ্ত শাহীনআগামী সোমবার নাগাদ এ বিষয়ে বিচারিক আদালতে ডোমেইন নিষেধাজ্ঞা চেয়ে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ কাজ শুরু করবেন। তাই ফেসবুক কর্তৃপক্ষের একটি লিগ্যাল টিম বিষয়টি নিয়ে বাংলাদেশি আইনজীবীর সঙ্গে যোগাযোগ করছেন বলেও জানান ব্যারিস্টার মোকছেদুল ইসলাম।বুধবার (১৮ নভেম্বর) ব্যারিস্টার মোকছেদুল ইসলাম জাগো নিউজকে বলেন, ৫০ হাজার ডলার ক্ষতিপূরণ চেয়ে বাংলাদেশের আদালতে মামলা করবে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। মামলার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন আছে।

তিনি বলেন, ফেসবুক বিশ্বের বহুল প্রচারিত সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম। এই নাম ব্যবহার করে কেউ ওয়েবসাইট খুলতে পারবে না। কিন্তু এ ওয়ান সফটওয়্যার লিমিটেড নামের একটি বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান ফেসবুক ডটকম ডটবিডি নামে একটি দেশি ডোমেইন খুলেছে। ডোমেইনটি ৬ মিলিয়িন ডলারে বিক্রি করা হবে বলে জানা গেছে। তাই তারা কর্তৃপক্ষের কাছে ৬ মিলিয়ন ডলার দাবি করছে। এ কারণে ফেসবুকের পক্ষ থেকে ওই ওয়েবসাইট বন্ধে একাধিকবার লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হয়েছে। কিন্তু সেটা বন্ধ করা হয়নি। এ বিষয়ে আইনি পদক্ষেপ নেয়ার জন্য ফেসবুক কর্তৃপক্ষ তাকে আইনজীবী হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে বলে জানান তিনি।ব্যারিস্টার মোকছেদুল ইসলাম বলেন, ইতোমধ্যে ছয় থেকে সাতশ পৃষ্ঠার ডকুমেন্ট আমাদের আইনজীবী টিমের কাছে সরবরাহ করেছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। আগামী সপ্তাহে ঢাকার নিম্ন আদালতে ক্ষতিপূরণের মামলা করা হবে। একই সঙ্গে ওই ওয়েবসাইট পরিচালনার ওপর নিষেধাজ্ঞা চাওয়া হবে আদালতের কাছে, যাতে এর মাধ্যমে কেউ প্রতারণার শিকার না হন।