করোনা ভ্যাকসিনের প্রথম সফল পরীক্ষা রাশিয়ায়!চীনে ভয়াবহ বন্যা, ১৪১ জনের বেশি প্রাণহানির শঙ্কা চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের ডিসি মিজানুর করোনায় মারা গেছেনতিস্তায় বাড়ছে পানি ভাঙছে বাড়ি রাজধানীতে মাদক নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হলে ওসিদের সরিয়ে দেওয়া হবে
No icon

৩২ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ হচ্ছে স্বাস্থ্য খাতে

করোনাভাইরাসে জনস্বাস্থ্যের ঝুঁকি মোকাবিলায় আসন্ন বাজেটে স্বাস্থ্য খাতকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিচ্ছে সরকার। বরাদ্দ অনেক বাড়ানো হচ্ছে। একই সঙ্গে ঢেলে সাজানো হবে স্বাস্থ্য খাত। অর্থ ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা স্বাস্থ্য খাতে বর্তমানে জিডিপির ১ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে কমপক্ষে ৪ শতাংশ করার পরামর্শ দিয়েছেন। একই সঙ্গে ব্যবস্থাপনাসহ স্বাস্থ্য খাতে আমূল সংস্কারের তাগিদ দিয়েছেন তারা।জানা গেছে, করোনা মোকাবিলায় সরকারি হাসপাতালগুলোতে ল্যাবরেটরি আধুনিকায়ন ও সম্প্রসারণ, আইসিইউ ইউনিট বাড়ানো, স্থলবন্দরে মেডিকেল সেন্টার স্থাপনসহ নানা পদক্ষেপ নেওয়ার ঘোষণা থাকছে আসন্ন বাজেটে। এ জন্য বাজেটে স্বাস্থ্য খাতে ৩২ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব থাকছে।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ সারাদেশে সরকারি হাসপাতালগুলোতে ধারণক্ষমতার কয়েক গুণ বেশি রোগী থাকে। কিন্তু চিকিৎসকসহ স্বাস্থ্যকর্মী কয়েক গুণ কম। ফলে সারাদেশে স্বাস্থ্যসেবা পরিস্থিতি করুণ। পরিসংখ্যান মতে, বাংলাদেশের স্বাস্থ্য খাতের উন্নয়নে জাতীয় বাজেটে বরাদ্দের হার দক্ষিণ এশিয়ার যে কোনো দেশের চেয়ে কম।অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, চলতি বাজেটে পরিবার পরিকল্পনা বিভাগসহ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অনুন্নয়ন ও উন্নয়ন মিলে মোট বাজেট ২৫ হাজার ৭৩২ কোটি টাকা। এর ৬৫ শতাংশই ব্যয় হয় বেতন-ভাতায়। বাকিটা উন্নয়নে। অথচ ভারতে স্বাস্থ্যে দেওয়া বরাদ্দ সে দেশের জিডিপির আড়াই শতাংশ। উন্নত বিশ্বের দেশগুলো স্বাস্থ্য খাতে জিডিপির ১০ শতাংশের বেশি খরচ করে।

জাতিসংঘের ইকোনমিক অ্যান্ড সোশ্যাল কমিশন ফর এশিয়া অ্যান্ড প্যাসিফিকের (এসকাফ) ২০১৮ সালের জরিপে বলা হয়েছে, জিডিপি অনুপাতে স্বাস্থ্য খাতে বরাদ্দে এশীয় ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় ৫২টি দেশের মধ্যে সবচেয়ে পিছিয়ে আছে বাংলাদেশ।অর্থ মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা সমকালকে বলেন, আগামী বাজেটে স্বাস্থ্য খাতে অনুন্নয়ন ও উন্নয়ন মিলে ৩২ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব থাকছে। প্রস্তাবিত এই বরাদ্দ চলতি অর্থবছরের বরাদ্দের চেয়ে ২৫ শতাংশ বেশি। এর মধ্যে উন্নয়ন বাজেট ১৩ হাজার ৩৩ কোটি টাকা, পরিচালন ব্যয় সাড়ে ১২ হাজার কোটি টাকা এবং স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও পরিবারকল্যাণ বিভাগে ছয় হাজার কোটি টাকার বেশি বরাদ্দের প্রস্তাব থাকছে।