ফেব্রুয়ারির প্রথম বা দ্বিতীয় সপ্তাহে স্কুল খোলার পরিকল্পনাভ্যাকসিন নিয়ে ধনী-দরিদ্রের বিভাজন খারাপের দিকে যাচ্ছে: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাচসিক নির্বাচনে মাঠে থাকবে ৮ হাজার পুলিশদেশের ইতিহাসে প্রথম টিকা নিচ্ছেন নার্স রুনু‘নতুন স্নায়ু যুদ্ধের’ বিষয়ে বিশ্ব সম্প্রদায়কে সতর্ক করলেন চীনা প্রেসিডেন্ট
No icon

চিনি-চুন দিয়ে তৈরি হচ্ছে ‘খাঁটি’ খেজুর গুড়

মানিকগঞ্জে হরিরামপুর উপজেলায় খেজুরের রস ছাড়াই চিনি ও চুন দিয়ে তৈরি ভেজাল খেজুর গুড়। জেলা ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তরের অভিযানে এ ধরনের জালিয়াতির ঘটনা ধরা পড়ে। এদিকে ভেজাল তৈরির দায়ে ৩ জনকে মোট ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এ সময় ১০ মণ ভেজাল গুড় বিনষ্ট করেছে ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তর। মঙ্গলবার সকালে উপজেলার কয়েকটি গ্রামে অভিযান চালিয়ে জেলা ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক আসাদুজ্জামান রুমেল এ জরিমানা করেন। আসাদুজ্জামান রুমেল জানান, জেলা প্রশাসক এসএম ফেরদৌসের নির্দেশনায় সোমবার ভোর থেকে সকাল পর্যন্ত উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে অভিযান পরিচালনা করা হয়। অসাধু মৌসুমি ব্যবসায়ীরা রাজশাহী থেকে সংগ্রহ করা বাসি ঝোলা রসের সঙ্গে বিভিন্ন অনুপাতে চিনি ও চুন মিশিয়ে প্রতিদিন ৩ থেকে ৪ মণ গুড় তৈরি করে। এছাড়া ২০ থেকে ৩০ লিটার ঝোলা রসের গুড়ের সঙ্গে ৫০ কেজি চিনি মিশিয়ে ৬০ থেকে ৮০ কেজি গুড়ও তৈরি করছে।

এভাবে ভেজাল গুড় তৈরির দায়ে হাপানিয়া গ্রামের শিমুলকে ৪ হাজার টাকা, রমজান আলীকে ১০ হাজার টাকা ও গোপীনাথপুর মজমপাড়া গ্রামের ককেলকে ১ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এ সময় ১০ মণ ভেজাল খেজুরের গুড় বিনষ্ট করা হয়েছে। ভবিষ্যতে ভেজাল খেজুরের গুড় প্রস্তুত করবে না মর্মে মুচলেকা দিয়েছেন ভেজালকারীরা।

অভিযানে হরিরামপুর উপজেলা স্যানিটারি ইন্সপেক্টর মো. নজরুল ইসলামসহ আনসার ব্যাটালিয়নের সদস্যরা সহযোগিতা করেন।

জেলা ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক আসাদুজ্জামান রুমেল জানান, এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।