বাণিজ্যচুক্তি বাতিল নয়, থাকবে নিষেধাজ্ঞাও: চীন প্রসঙ্গে বাইডেনভুয়া সনদে চিকিৎসক হিসেবে নিবন্ধন : ১৪ জনের বিরুদ্ধে মামলাপ্রথম ধাপে ভাসানচর যাচ্ছে ৬শ' রোহিঙ্গা পরিবার!ইয়েমেনে প্রতি ১০ মিনিটে মরছে একটি শিশুঢাকায় আসার সম্মতি দিয়েছেন এরদোগান
No icon

অভিযোগ বাড়ছে উবারের বিরুদ্ধে

অ্যাপভিত্তিক পরিবহন সেবা উবার ক্রমেই জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। রাজধানীর বাস সার্ভিস অত্যন্ত নিম্নমানের হওয়ায় খরচ একটু বেশি হলেও অনেকেই এই সেবার ওপর নির্ভরশীল। তবে এই জনপ্রিয়তার পাশাপাশি উবারের বিরুদ্ধে যাত্রী আর চালকদের অভিযোগও বাড়ছে। মাঝেমধ্যেই উবারের অস্বাভাবিক ভাড়ার হার, চালকরা যাত্রীদের পছন্দের গন্তব্যে যেতে না চাওয়া, নগদ অর্থে ভাড়া পরিশোধের শর্তে রাজি না হলে চালকদের কল কেটে দেওয়ার অভিযোগ গ্রাহকদের। গ্রাহকদের আরও একটি বড় অভিযোগ উবার রেন্টাল সার্ভিস নিয়ে। এই সার্ভিসে যাত্রী তার চাহিদা অনুযায়ী নির্ধারিত সময়ের জন্য একটি গাড়ি ভাড়া নিতে পারেন। কিন্তু ভাড়া নির্ধারণের ক্ষেত্রে এক ঘণ্টা অথবা ১০ কিলোমিটারের হিসাবে যাত্রীরা প্রতারণার অভিযোগ করেছেন। অন্যদিকে উবার চালকদের অভিযোগ, বিকাশে ভাড়ার ক্ষেত্রে যাত্রীদের ৩০ শতাংশ ছাড়ের টাকা চালকদের ভাড়ার টাকা থেকে কেটে রাখা হচ্ছে। কোন এলাকার যাত্রী পেতে ইচ্ছুক তা নির্ধারিত করে দিলেও উবার থেকে উল্টোদিকের এলাকার গন্তব্যে ট্রিপ দেওয়া হচ্ছে। ভাড়ার হার অস্বাভাবিক ওঠানামার কারণেও যাত্রীদের সঙ্গে অনাকাঙ্ক্ষিত বচসা হচ্ছে। এসব বিষয়ে জানতে চাইলে উবারের একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, উবারের ভাড়া একটি সুনির্দিষ্ট গাণিতিক পদ্ধতিতে যাত্রীর যাত্রা শুরুর স্থান এবং গন্তব্যের দূরত্বের ওপর ভিত্তি করে নির্ধারণ করা হয়। এ ক্ষেত্রে তাদের গতিশীল ভাড়া নির্ধারণের পদ্ধতি যাত্রী এবং চালক দুপক্ষের জন্যই সহায়ক হয়।

যাত্রীদের অভিযোগ: যারা নিয়মিত উবার ব্যবহার করেন এমন দশজন যাত্রীর সঙ্গে আলাপ করলে তারা প্রত্যেকেই জানান, সাম্প্রতিক সময়ে উবার ব্যবহারের সবচেয়ে বড় সমস্যা হচ্ছে, কল দেওয়ার পর অধিকাংশ উবার চালক ফোন করে যাত্রীর কাছে জানতে চান, তিনি কোথায় যাবেন। গন্তব্য পছন্দ না হলে উবার চালক কেটে দেন। অভিজ্ঞতার কথা জানিয়ে নিয়মিত উবার ব্যবহার করা একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলাম বলেন, ট্রিপের কল হওয়ার পরপরই চালক ফোন করে কিংবা চালককে ফোন করলে চালক প্রথমেই জানতে চান কোথায় যাবেন? এরপর গন্তব্য পছন্দ না হলে যাবেন না বলে ফোন কেটে দেন। কিছু কিছু চালক ট্রিপ ফরওয়ার্ড করে দেন। কিন্তু অধিকাংশ চালক নিজেরা ট্রিপ বাতিল করেন না। ফলে যাত্রীদের ট্রিপ বাতিল করতে হয় এবং অনেক ক্ষেত্রেই ৩০ টাকা জরিমানা দিতে হয়। আরেকজন নিয়মিত যাত্রী সরকারি চাকুরে মিজানুর রহমান জানান, একটা সমস্যা হচ্ছে, অনেক চালক ট্রিপ পাওয়ার পর ফোন করে শর্ত দিয়ে দেন, ভাড়া নগদ অর্থে পরিশোধ না করা হলে তিনি যাবেন না। এ কারণে তার মতো অনেকেই ব্যাংকের কার্ডে কিংবা বিকাশে ভাড়া যারা পরিশোধ করতে চান তারা বিপাকে পড়ছেন।যাত্রীরা জানান, কভিড-১৯ মহামারির কারণে লকডাউনের পর পুনরায় উবার চালু হওয়ার পর ভাড়া অপেক্ষাকৃত বেড়েছে। প্রতি গন্তব্যেই আগের চেয়ে ৫০ থেকে ১০০ টাকা বেশি ভাড়া আসছে। তবে মাঝেমধ্যে ভাড়ার হার অত্যন্ত অস্বাভাবিক হয়ে যাচ্ছে।