এফডিসির ঘটনায় ডিপজল-মিশা সওদাগরের দুঃখ প্রকাশপ্রধানমন্ত্রী আজ থাইল্যান্ড যাচ্ছেনগরমের তীব্রতা কমাতে কী কাজ করেছেন, জানালেন হিট অফিসারবিনা ভোটে নির্বাচিত ৩৩ প্রার্থীসব ধরনের যাত্রীবাহী ট্রেনে ভাড়া বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ রেলওয়ে
No icon

প্রথম ছবিতেই বন্ধু খুঁজে পেয়েছি: শ্রুতি দাস

জন্ম কলকাতায়। রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতোকত্তর করে পাড়ি দিয়েছিলেন দুবাই। উদ্দেশ্য ‘বলিউড মিউজ়িক্যাল’-এ অভিনয়। দেশে ফিরে বলিউডে অভিনয় শুরু করেছিলেন। ইমতিয়াজ় আলির ওয়েব সিরিজ়, তার পর একটা থ্রিলার। ইতিমধ্যে ফোনটা আসে সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের তরফে। পেয়ে যান ‘এক্স ইকুয়ালস্‌ টু প্রেম’ ছবির প্রস্তাব। 

অভিনেত্রী শ্রুতি দাসের অভিনয় জীবনের বাকিটা সকলেরই জানা। ঠিক এক বছরের মাথায় আবার নতুন ছবিতে শ্রুতি। দেবালয় ভট্টাচার্য পরিচালিত ‘বাদামী হায়নার কবলে’ ছবিতে অভিনয় করবেন তিনি। ছবির ঘোষণার সময়ে প্রযোজনা সংস্থার (এসভিএফ) তরফে শ্রুতির নাম ঘোষণা করা হয়নি। তবে ছবির মহরতে অভিনেত্রীর উপস্থিতি অনেকেরই নজর কেড়েছে। এই ছবিতেই স্বপনকুমার সৃষ্ট গোয়েন্দা চরিত্রে অভিনয় করছেন আবীর চট্টোপাধ্যায়। শ্রুতির চরিত্রটি কী রকম? হেসে বললেন, ‘‘এখন এই প্রসঙ্গে কিছু বলা নিষেধ। তবে আমি বরাবরই পাল্প ফিকশনের ভক্ত। এ রকম একটা চরিত্রের সন্ধানে ছিলাম।’’

চলতি মাসের শেষেই ছবির শুটিং শুরু হওয়ার কথা। তাই হাতে সময় কম। তার মধ্যেই নিজেকে গড়ে পিটে নিতে চাইছেন শ্রুতি। তাঁর কথায়, ‘‘দেবালয়দার সঙ্গে চিত্রনাট্য নিয়ে বেশ কয়েক বার বসেছি। এই ঘরানার কোনও বিষয়বস্তু নিয়ে ছবি করাটা খুব কঠিন। আমি আপ্রাণ চেষ্টা করব।’’

টলিউডে সবে পা রেখেছেন। এরই মধ্যে তৈরি হয়েছে নিজস্ব অনুরাগী বৃত্ত। কী মনে হচ্ছে তাঁর? শ্রুতি বললেন, ‘‘আমি ভাগ্যবান। সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের মতো পরিচালকের ছবির মাধ্যমে ইন্ডাস্ট্রিতে পা রেখেছি। ছবিতে জয়ী চরিত্রটিকে এখনও দর্শক মনে রেখেছেন। সেরা ডেবিউ অভিনেত্রীর হিসাবে একাধিক পুরস্কার পেয়েছি। একজন নতুন অভিনেত্রী হিসাবে এইগুলো আমাকে খুবই অনুপ্রাণিত করেছে।’’

উত্তর কলকাতায় বড় হয়েছেন শ্রতি। বাবা-মা কলকাতায় থাকেন। অভিনেত্রী জোর গলায় বলেন, ‘‘আমি কলকাতা এবং মুম্বই, দুই ইন্ডাস্ট্রি মিলিয়েই কাজ করছি। যখন যেখান থেকে ডাক আসে, সেখানে হাজির হয়ে যাই।’’ টলিউড নিয়েও বিভিন্ন নেতিবাচক কথা শোনা যায়। অল্প সময়ের মধ্যে এই ইন্ডাস্ট্রিতে তাঁর অভিজ্ঞতা কী রকম? শ্রুতি বললেন, ‘‘খুবই ভাল। এখনও পর্যন্ত আমার সঙ্গে যা যা হয়েছে সেটা ভাল। কারও বিরুদ্ধে কোনও অভিযোগ করার প্রশ্নই ওঠে না।’’ বিভিন্ন স্বাদের প্রজেক্টের প্রস্তাবও পাচ্ছেন অভিনেত্রী। তবে জল মেপে পা ফেলতে চান। টলিপাড়ায় তাঁর সবথেকে কাছের বন্ধু এখন কে? সঙ্গে সঙ্গে বললেন, ‘‘অনিন্দ্য (‘এক্স ইকুয়ালস্‌ টু প্রেম’ ছবির অনিন্দ্য সেনগুপ্ত) এবং ওর স্ত্রী। প্রথম ছবিতেই যে এত ভাল একটা বন্ধু পেয়ে যাব, সেটা আগে ভাবিনি।’’