দেশে এক দিনে চল্লিশের বেশি মৃত্যুদেশে করোনার ভারতীয় ধরন শনাক্তবিশ্ব কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্মদিন আজ শপিং মলে ভিড়, বালাই নেই স্বাস্থ্যবিধিরআজ থেকে ফেরিতে যাত্রী পারাপার বন্ধ
No icon

পদ্মা সেতুর নির্মাণকাল বাড়ছে দুই বছর

অতিরিক্ত দুই বছর মেয়াদ বাড়ছে আলোচিত পদ্মা সেতু প্রকল্পের। আগামী ২০২৩ সালের জুন পর্যন্ত মেয়াদ বাড়ানোর সুপারিশ করেছে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়ন, পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগ (আইএমইডি)। তবে আগামী বছরের জুনের মধ্যে মূল সেতুর কাজ শেষে খুলে দেওয়া হবে। আরও এক বছরে অন্যান্য কাজ শেষ করা হবে। অর্থাৎ ডিফেক্ট লায়াবেলিটি পিরিয়ড বা নির্মাণ শেষে কোনো ত্রুটি, ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানগুলোর দায়বদ্ধতার জন্য অতিরিক্ত এক বছর সময় বাড়াতে সম্মত হয়েছে আইএমইডি। নতুন মেয়াদ বৃদ্ধির জন্য জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় অনুমোদনের জন্য সুপারিশ করা হয়েছে। তবে মেয়াদ বাড়লেও নতুন করে ব্যয় বাড়ছে না।আইএমইডি সূত্র জানিয়েছে, মেয়াদ বৃদ্ধির জন্য সেতু কর্তৃপক্ষের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সম্প্রতি প্রকল্প এলাকা সরেজমিন পরিদর্শনে যায় আইএমইডির একটি প্রতিনিধি দল। এ বিভাগের সদস্য সরকারের সচিব প্রদীপ রঞ্জন কর্মকার পরিদর্শন দলের নেতৃত্ব দেন। এ-সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন তৈরি করেছে আইএমইডি। প্রতিবেদনে প্রকল্পের মেয়াদ বৃদ্ধির যৌক্তিকতা প্রসঙ্গে বলা হয়, অতিমারি করোনার কারণে এক বছর ধরে প্রকল্পের কাজ মারাত্মকভাবে ব্যাহত হয়েছে। বিদেশি পরামর্শক এবং চায়নিজ ঠিকাদারের উল্লেখযোগ্য একটা অংশ এখনও প্রকল্প এলাকায় কাজে ফিরতে পারেনি। প্রকল্পে ১৮টি দেশের চার হাজার বিদেশি কাজ করেন। এ ছাড়া প্রকল্প এলাকায় অবস্থান করা স্থানীয় কর্মীরাও করোনা-ভীতির কারণে ঠিকমতো কাজে আসেননি।

গত মৌসুমে দীর্ঘস্থায়ী এবং দফায় দফায় বন্যায় নির্মাণকাজ ব্যাহত হয়েছে। পদ্মা নদীর পানি অস্বাভাবিক উচ্চতায় উঠে। তীব্র স্রোতের কারণে মাওয়া অংশে নির্মাণ ইয়ার্ড ভাঙনের শিকার হয়। ভাঙনে ১২৫টি রেলওয়ে স্লাব ও ১৯২টি রেলওয়ে স্ট্রিংগার তলিয়ে যায়। ফলে সংগত কারণেই প্রকল্পের মেয়াদ বৃদ্ধির প্রয়োজন।একনেকে এবার অনুমোদন পেলে তৃতীয় দফা সময় বাড়বে সরকারের সর্বোচ্চ অগ্রাধিকারমূলক বৃহৎ প্রকল্পটির। দ্বিতীয় দফা সংশোধনীর পর এ বছর জুনে প্রকল্পের কাজ শেষ হওয়ার কথা ছিল। প্রথম দফায় ২০১৯ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত সময় বাড়ানো হয়েছিল। এবার তৃতীয় দফায় ২০২৩ সাল পর্যন্ত মেয়াদ বাড়ানো হচ্ছে। ২০১৪ সালের ৭ ডিসেম্বর পদ্মা বহুমুখী সেতুর নির্মাণকাজ শুরু হয়।জানতে চাইলে আইএমইডির সচিব সমকালকে বলেন, সরকারের অগ্রাধিকারভিত্তিক বড় প্রকল্পটি সরেজমিন পরিদর্শনে প্রকৃত অবস্থা তুলে আনার চেষ্টা করেছেন তারা। মূলত করোনার বাস্তবতায় প্রকল্পকাজের গতি ব্যাহত হয়েছে। এখানে কারও কিছু করার ছিল না। এ বাস্তবতা মেনে প্রকল্পের মেয়াদ বৃদ্ধির জন্য একনেকে অনুমোদনের জন্য সুপারিশ করেছেন তারা।