পোশাক রপ্তানিতে আবারও দ্বিতীয় স্থানে বাংলাদেশমোড়কজাত সনদ ছাড়া পণ্য বিক্রি করলে জেল ও জরিমানা স্পেনকে হারিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে নকআউটে জাপানরোহিঙ্গা পুনর্বাসন শুরু করতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রশীর্ষে থাকার ম্যাচে আজ মাঠে নামছে ব্রাজিল
No icon

একটাই চার্জার হবে সব ডিভাইসের জন্য

অ্যাপল গত বছরই আইফোনের চার্জিং পোর্ট পরিবর্তনের ঘোষণা দিয়েছিল। তবে এখনো কাজ শুরু করেনি সংস্থাটি। এরই মধ্যে স্মার্টফোন, ট্যাবলেট এবং ক্যামেরার জন্য বড় সিদ্ধান্তে অনুমোদন দিয়ে দিল ইউরোপীয় সংসদ। নতুন নিয়মে বলা হচ্ছে ইউরোপীয় ইউনিয়নের মধ্যে থাকা দেশগুলোতে আগামী ২০২৪ সালের মধ্য়ে একক চার্জিং পোর্ট (পড়ুন টাইপ-সি চার্জিং পোর্ট) চালু করতে হবে। নতুন এই সিদ্ধান্তের ফলে সবচেয়ে বেশি প্রভাবিত হতে পারে অ্যাপল, এমনটাই মনে করছে বিশেষজ্ঞরা। কারণ নতুন এই সিদ্ধান্তে অ্যাপলকে কিছুটা উদ্বেগ প্রকাশ করতে দেখা গেছে। তাদের দাবি, এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হলে ইলেকট্রনিক বর্জ্যের পরিমাণ বহুগুণ বাড়বে। এমনকি এই সিদ্ধান্তের ফলে নব প্রজন্মের ইলেকট্রনিক ডিভাইসগুলির উদ্ভাবনী ক্ষমতা অনেকটাই কমবে।


এমনকি এই সিদ্ধান্ত কার্যকর করার আগে ভোটাভুটিও হয় সংসদে। আইনটি পক্ষে ৬০২ ভোট এবং বিপক্ষে ১৩টি ভোটে গৃহীত হয়েছিল। যদিও পাকাপাকিভাবে এই সিদ্ধান্ত ঘোষিত হয়ে যাওয়ার পড়ে এখনো পর্যন্ত অ্যাপল, স্যামসাং এবং হুয়াওয়ের মতো তাবড় তাবড় স্মার্টফোন প্রস্তুতকারক সংস্থাগুলোর কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। তবে ইউরোপীয় ইউনিয়নের বাইরের দেশগুলোতে এর কী প্রভাব পড়বে তা নিয়ে এরই মধ্যেই জল্পনা তৈরি হয়ে গিয়েছে।

এই আইনে বলা হচ্ছে, স্মার্টফোন, ল্যাপটপ এবং ক্যামেরা উত্পাদনকারী সংস্থাগুলোকে অন্তত ইউরোপে একটি স্ট্যান্ডার্ড চার্জার গ্রহণ করতে হবে। বর্তমানে বেশিরভাগ অ্যান্ড্রয়েড ফোন ইউএসবি টাইপ-সি চার্জিং পোর্টের সঙ্গে আসে। এছাড়াও টাইপ বি-এর চার্জারও আছে অনেক ডিভাইসে। ফলে ইলেকট্রনিক বর্জ্যের পরিমাণও বেড়ে যাচ্ছে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

এই পদক্ষেপটির ফলে আইফোন থেকে শুরু করে অ্যান্ড্রয়েড ফোন, ল্যাপটপ, ট্যাবলেট সবই একই চার্জারে চলবে। ২০২৪ সালের মধ্যে এসব ডিভাইসে এই সুবিধা পাওয়া যাবে। তবে ল্যাপটপ নির্মাতারা ২০২৬ সাল পর্যন্ত অতিরিক্ত ২ বছর সময় পাবেন।