অধ্যক্ষ সিরাজের পক্ষে আদালতে দাঁড়াননি কোনো আইনজীবীঢাকার ৮৪ শতাংশ বহুতল ভবনই ত্রুটিপূর্ণরাজস্ব কর্মকর্তা হিসেবে আউট সোর্সিংয়ে ১০ হাজার শিক্ষার্থী নিয়োগসুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা বেড়েছেবেশি দামে টিকিট বিক্রি : হানিফ এস আর ট্রাভেলসকে জরিমানা
No icon

রোকেয়া হলে পুনর্নির্বাচন ও প্রাধ্যক্ষের পদত্যাগ দাবিতে বিক্ষোভ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হল সংসদ নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ এনে রোকেয়া হলে পুনর্নির্বাচন ও হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক জিনাত হুদার পদত্যাগ দাবিতে বিক্ষোভ করছেন হলটির ছাত্রীরা। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টা থেকে শুরু হয় এ বিক্ষোভ। রাত ১টায় এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত এই বিক্ষোভ চলছে। বিক্ষোভকারীরা কারচুপির নির্বাচন মানি না, মানব না প্রহসনের নির্বাচন মানি না, মানব না অবিলম্বে প্রাধ্যক্ষের পদত্যাগ করতে হবে বিভিন্ন স্লোগান দিচ্ছে। উল্লেখ্য, ডাকসু নির্বাচন চলাকালে রোকেয়া হলে ভোটকেন্দ্রের পাশের একটি কক্ষ থেকে তিন ট্রাংকে ফাঁকা ব্যালট পেপার পাওয়া যায়। নির্ধারিত সময়ের এক ঘণ্টা পর ভোট শুরু এবং তার এক ঘণ্টা পর আবার ভোট বন্ধ হয়। রোকেয়া হলের ছাত্রীদের অভিযোগ, হলে মোট নয়টি ব্যালট বাক্সে ভোটগ্রহণ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ভোটগ্রহণ শুরু হওয়ার সময় ছয়টি ব্যালট বাক্স দেখানো হয়। এ নিয়ে শুরু থেকেই তাদের মধ্যে সন্দেহ ছিল। ছাত্রীদের মধ্যে ক্ষোভ ছিল। পরে তারা জানতে পারেন, পাশের একটি কক্ষে ওই তিনটি ব্যালট বাক্স রাখা হয়েছে। ছাত্রীরা কক্ষটির দরজা ভেঙে ওই তিনটি ব্যালট বাক্স বের করে বাইরে নিয়ে আসেন। তারা ওই ব্যালট বাক্সগুলোর তালা ভেঙে দেখেন সেগুলোয় ব্যালট পেপার ভরা। তবে সেগুলোয় ভোট দেয়া ছিল না। শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করে বলেন, এত ব্যালট পেপার কেন? সেগুলো লুকিয়েই বা রাখা হবে কেন?

এ ঘটনায় বেলা সাড়ে ১১টার পর থেকে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয় এ হলে। কয়েক ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর বিকেল ৩টায় ফের ভোট শুরু হয়। সোমবার (১১ মার্চ) অনুষ্ঠিত এ নির্বাচনে কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা নুরুল হক নুর সহ-সভাপতি (ভিপি) নির্বাচিত হয়েছেন। নির্বাচনে সাধারণ সম্পাদক (জিএস) পদে জয়লাভ করেন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। এছাড়া সহ-সাধারণ সম্পাদক (এজিএস) নির্বাচিত হন ঢাবি শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসাইন।

সোমবার দিবাগত রাত ৩টা ১৭ মিনিটে বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবন মিলনায়তনে ভোটের ফল ঘোষণা করেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান। ফল ঘোষণার পর রাতেই ছাত্রলীগ সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনের অনুসারীরা নুরকে ভিপি হিসেবে মেনে না নিয়ে বিক্ষোভ শুরু করেন। অবরুদ্ধ করে রাখেন উপাচার্যকে। মঙ্গলবার দিনভর অনেক নাটকীয়তা শেষে নবনির্বাচিত ভিপি নুরুল হক নুরকে মেনে নিয়ে শুভেচ্ছা জানান ছাত্রলীগ সভাপতি মো. রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন।