বজ্রবৃষ্টির আভাস, নদীবন্দরে সতর্ক সংকেতভোটারদের দশ আঙুলের ছাপ নেবে ইসিপিছিয়ে পড়া শিক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ উদ্যোগকে কীভাবে আয়কর রিটার্ন জমা দেবেনজাতিসংঘে উঠছে একাত্তরের গণহত্যার স্বীকৃতির দাবি
No icon

জ্বালানি তেলের দাম বাড়তে পারে লিটারে ২০-৩০ টাকা

আন্তর্জাতিক বাজারে অব্যাহতভাবে বাড়ছে জ্বালানি তেলের দাম বাড়তে পারে লিটারে ২০-৩০ টাকা তেলের দাম। এর ফলে প্রতিদিন প্রায় শতকোটি টাকা লোকসান দিতে হচ্ছে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশনকে (বিপিসি)। আর এ অবস্থা চলতে থাকলে তিন মাস পর রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থাটি আমদানির সক্ষমতা হারাবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। এমন প্রেক্ষিতে দেশে জ্বালানি তেলের দাম বাড়তে পারে লিটারে ২০-৩০ টাকা তেলের সরবরাহ ঠিক রাখতে দাম বাড়িয়ে ভর্তুকির পরিমাণ কমিয়ে আনতে চায় সরকার। এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীও সবুজ সংকেত দিয়েছেন। তবে দাম বাড়ালে মানুষের জীবনযাত্রাসহ বিভিন্ন খাতে এর কী ধরনের প্রভাব পড়তে পারে- গভীরভাবে তা পর্যালোচনা করা হচ্ছে। চলছে চুলচেড়া হিসাব-নিকাশ। জ্বালানি বৃদ্ধির ফলে গণপরিবহনে যে লাগামহীন নৈরাজ্য তৈরি হয়- কীভাবে তা নিরসন করা যায়, সরকারের ভাবনায় রয়েছে সেটাও। সংশ্লিষ্টরা অবশ্য বলছেন, প্রতি লিটার ডিজেলের দাম ২০ থেকে ৩০ টাকার মতো বাড়তে পারে।এবার জ্বালানি তেলের দাম বাড়তে পারে লিটারে ২০-৩০ টাকা তেলের দাম বাড়ানোর আগেই গণপরিবহন ও লঞ্চ ভাড়া নির্ধারণ করে দিতে চায় সরকার, যাতে মালিকরা নিজেদের ইচ্ছেমতো আদায় করে নৈরাজ্য তৈরি করতে না পারে। তাই লিটারে ডিজেলের দাম ২০ কিংবা ৩০ টাকা বাড়ানো হলে কিলোমিটারপ্রতি কত টাকা পরিবহন ভাড়া

বাড়বে সেই হিসাব চলছে। এ বিষয়ে পরিবহন মালিক ও তেল ব্যবসায়ীদের সঙ্গে গতকাল সোমবার বিদ্যুৎ ভবনে বৈঠকও করেছে জ্বালানি বিভাগ। বিদ্যুৎ ও জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদের সভাপতিত্বে তাতে অংশ নেন জ্বালানি বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. মাহবুব হোসেন, পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান মো. নাজমুল আহসান, অতিরিক্ত সচিব মুহাম্মদ শের আলীসহ জ্বালানি বিভাগ ও বিপিসির সিনিয়র কর্মকর্তারা। ছিলেন বিআরটিএ, বিআইডব্লিটিএসহ জ্বালানি তেল সরবরাহকারী বিভিন্ন কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ পরিবহন মালিক সমিতি, পেট্রোলপাম্প মালিক সমিতি, কভার্ডভ্যান মালিক সমিতিসহ বিভিন্ন স্টেকহোল্ডারও। প্রতি লিটারে ৩০ টাকা তেলের দাম বাড়লে কিলোমিটারপ্রতি বাসের সম্ভাব্য ভাড়া হবে ২ টাকা ৩৯ পয়সা এবং দূর পাল্লার ক্ষেত্রে ২ টাকা ০৫৮ পয়সা। আর ২০ টাকা বাড়ানো হলে কিলোমিটারপ্রতি সম্ভাব্য ভাড়া হতে পারে ২ টাকা ৩১ পয়সা, দূরপাল্লার ক্ষেত্রে ১ টাকা ৯৭ পয়সা।

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক হোসেন আহমেদ মজুমদার বলেন, আমি বৈঠকে বলেছি- যখন দেশের বাজারে ডিজেলের দাম ৬৫ টাকা ছিল তখন আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম তলানিতে ছিল। এখন বেশি হওয়ায় বিপিসি লোকসানের হিসাব দিচ্ছে। তখন কত লাভ করেছিল সেই হিসাবও দেওয়া দরকার।এদিকে বাংলাদেশ পেট্রোলপাম্প ওনার্স অ্যাসোসিয়েমনের সভাপতি মোহাম্মদ নাজমুল হক বলেন, আমি বৈঠকে বলেছি- তেলের দাম বৃদ্ধির আগে মানুষকে বিষয়টি জানাতে হবে। মানুষের মাইন্ড সেট ঠিক করতে হবে। তা না হলে হঠাৎ করে তেলের দাম বৃদ্ধি মানুষ মেনে নিতে পারবে না।বৈঠকে আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম ট্যাংকার অ্যাসোসিয়েশনের কেএম জামান রুমেন, বাংলাদেশ পেট্রোলপাম্প ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব মো. মিজানুর রহমান রতন, ট্যাংক লরি ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সৈয়দ সাজ্জাদুল করিম বাবুল, মহাসচিব মিজারনুর রহমান রতনসহ বিভিন্ন সেক্টরের নেতারা।