রাখাইনে ৬ লাখ রোহিঙ্গা গণহত্যার চরম ঝুঁকিতে : জাতিসংঘজাপান সাগরে উত্তর কোরিয়ার দুই জাহাজ আটক করেছে রাশিয়ার সীমান্ত বাহিনী। মস্কো বলছে, দুটি ছদ্মবেশী জাহাজ তাদের সমুদ্র অঞ্চলে প্রশেব করেছে। জাহাজ দুটির মধ্যে একটি থেকে দেশটির টহলরত জাহাজে হামলা করা হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়। মঙ্গলবার ফেডারেল সিকিউরিটি সার্ভিসে (এএসবি) বরাত দিয়ে তাস নিউজ এ খবর জানায়। উত্তর কোরিয়ার একটি স্কুনার (৪৫ জনেরও বেশি লোক) একটি সীমান্ত টহল জাহাজের পরিদর্শন দলের ওপর সশস্ত্র হামলা চালায়। এতে তিনজন সেনাবাহিনীর সদস্য আহত হয়েছেন।জাবির ঘটনায় শিক্ষকরা লজ্জিত : আরেফিন সিদ্দিকদলে শুদ্ধি অভিযান চলছে : কাদেরছাত্রদলের কাউন্সিলরদের সই সংগ্রহ, সিলেকশন শঙ্কা প্রার্থীদের
No icon

স্বর্ণ চোরাচালানের কথা স্বীকার করলেন নারী ক্রু

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ১০ কেজি স্বর্ণের বারসহ গ্রেফতার নারী ক্রু রাবেয়া শেখ মৌসুমি স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। সোমবার (৯ সেপ্টেম্বর) আদালতে দেয়া জবানবন্দিতে তিনি স্বর্ণ চোরাচালানের কথা স্বীকার করেন। দুইদিনের রিমান্ড শেষে আজ (সোমবার) তাকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করা হয়। এ সময় তার জবানবন্দি রেকর্ড করার আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বিমানবন্দর থানার উপ-পরিদর্শক সফিকুল ইসলাম। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকা মহানগর হাকিম তোফাজ্জল হোসেন তার জবানবন্দি রেকর্ড করেন। জবানবন্দি রেকর্ড শেষে ক্রু রাবেয়া শেখ মৌসুমিকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত।

গত শুক্রবার (৬ সেপ্টেম্বর) ঢাকা মহানগর হাকিম মোহাম্মদ জসিম দু'দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এর আগে বৃহস্পতিবার (৫ সেপ্টেম্বর) সকালে বিমানবন্দর আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) তাকে আটক করে।

বিমানবন্দর আর্মড পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপারেশন্স অ্যান্ড মিডিয়া) আলমগীর হোসেন জানান, মৌসুমি একটি বেসরকারি এয়ারলাইন্সের ক্রু হিসেবে কর্মরত। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় মাস্কাট থেকে ঢাকায় অবতরণ করা ফ্লাইটে তিনি ছিলেন। তার কাছ থেকে স্বর্ণগুলো (১০ কেজি) জব্দ করা হয়েছে।

আলমগীর হোসেন জানান, গোপন তথ্যের ভিত্তিতে আমরা তাকে নজরদারিতে রাখি। ফ্লাইট নামার পর ডমেস্টিক টার্মিনালে গিয়ে সে গাড়িতে ওঠার চেষ্টা করে। এপিবিএন তাকে চ্যালেঞ্জ করে বিমানবন্দরের এপিবিএন অফিসে নিয়ে আসে। পরে তার পকেট ও শরীরের বিভিন্ন স্থান থেকে ব্রাউন স্কচটেপ দিয়ে মোড়ানো মোট ৮২টি স্বর্ণের বার পাওয়া যায়।