লেনদেনসহ এক সপ্তাহ বন্ধ থাকবে এমটিবির সব সেবাসেন্টমার্টিনে গিয়ে দুই শতাধিক পর্যটক আটকাআফগানিস্তানে মসজিদে বিমান হামলায় নিহত ১২নৌযান শ্রমিকদের ধর্মঘট প্রত্যাহার‘তীব্র বাতাসে’ বাংলাদেশের দিকে নিম্নচাপ, মোংলা থেকে ৫৬০ কিমি দূরে
No icon

রোহিঙ্গা ফেরতে যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তা চাইল বাংলাদেশ

ফেরত যেতে পারে, সে জন্য যুক্তরাষ্ট্রসহ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের জোরালো ভূমিকা ও সহায়তা চেয়েছে বাংলাদেশ। একই সঙ্গে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের খুনি রাশেদ চৌধুরীকে ফেরত দিতে যুক্তরাষ্ট্রকে বলা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলে বাংলাদেশকে গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার হিসেবে দেখে।ঢাকা সফররত যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের ডেপুটি সেক্রেটারি স্টিফেন এডওয়ার্ড বিগান গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবনে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। এর আগে সকালে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেনের সঙ্গে বিগানের বৈঠক হয়।বিগানের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা অবিলম্বে রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসন চাই; যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বসম্প্রদায়ের উচিত মিয়ানমারে তাদের প্রত্যাবাসনে সহায়তা করা।জবাবে বিগান বলেন, আমরা দীর্ঘায়িত রোহিঙ্গা সংকটের স্থায়ী সমাধান চাই। আমরা এই ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি আমাদের সমর্থন অব্যাহত রাখব।বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন প্রধানমন্ত্রীর প্রেসসচিব ইহসানুল করিম। তিনি বলেন, বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন,জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত মিয়ানমারের ১১ লাখের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে রয়েছে। এটি আমাদের জন্য অতিরিক্ত বোঝা। সমস্যাটি মিয়ানমার তৈরি করেছে এবং আমরা তাদের সাথে সংলাপ করছি, তাদের উচিত তাদের নাগরিকদের ফিরিয়ে নেওয়া।

যুক্তরাষ্ট্রের মায়ামিতে বাংলাদেশ কনস্যুলেট করার বিষয়ে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে জানিয়ে বিগান বলেন, আমেরিকার জনগণ ও বাংলাদেশি আমেরিকানদের কল্যাণে বাংলাদেশের কূটনৈতিক উপস্থিতি বাড়াতে চাই আমরা।তিন দিনের সফরে গত বুধবার বিকেলে ঢাকায় পৌঁছেন যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ কর্মকর্তা বিগান। ওই রাতেই ঢাকার একটি হোটেলে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমের সঙ্গে তাঁর বৈঠক হয়। সেখানে মহামারি-পরবর্তী সময়ে অর্থনীতি পুনরুদ্ধারের অংশ হিসেবে মুক্ত বাণিজ্য চুক্তির (এফটিএ) সম্ভাবনা নিয়ে কথা হয় বলে জানা গেছে।এর আগে গতকাল সকালে ধানমণ্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন করেছেন বিগান। সেখানে জাতির পিতার প্রতি শ্রদ্ধা জানান তিনি। এ সময় ইন্টারন্যাশনাল ভিজিটরস বুকের লেখা বক্তব্যে অতীতের ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশের সহযোগিতামূলক সম্পর্ক এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার আশা প্রকাশ করেন তিনি।