রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন স্থগিতভোট আর পেছাচ্ছে নানির্বাচনী প্রতীক জানাতে ইসিতে যাচ্ছে ঐক্যফ্রন্টনির্বাচনের কারণে উইন্ডিজ সিরিজে মাশরাফির খেলা অনিশ্চিতজামিন পেলেন আলোকচিত্রী শহিদুল
No icon

রাজধানীতে আওয়ামী লীগের ‘কেন্দ্রভিত্তিক কমিটি’ গঠনের কাজ শুরু

আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রস্তুতি উপলক্ষে ঢাকা মহানগরীতে কেন্দ্রভিত্তিক কমিটি গঠনের কাজ শুরু করেছে আওয়ামী লীগ। প্রত্যেক কেন্দ্রে ভোট পাহারা দিতে এ কমিটি গঠন করা হচ্ছে। আওয়ামী লীগ,সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের নেতাদের নিয়ে ১২১ সদস্য বিশিষ্ট এ কমিটি গঠনের প্রক্রিয়া চলছে। সারাদেশে ৪০ হাজার কমিটি করা হবে। ভোটের আগে এ কমিটির সদস্যদের প্রশিক্ষণও দেয়া হবে। আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের সঙ্গে আলাপ করে জানা গেছে,কেন্দ্রভিত্তিক কমিটিতে যাদের রাখা হবে তাদের আওয়ামী লীগ,সহযোগী এবং ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের নেতাদের অত্যন্ত বিশ্বস্ত হতে হবে। এলাকার ভোটারদের চিনতে হবে।

এলাকায় আওয়ামী লীগের প্রার্থীর নিজস্ব লোককে কমিটিতে প্রাধান্য দেয়া হবে। এলাকার ভোটার সম্পর্কে ধারণা থাকতে হবে। ভোটারদের বাড়ি বাড়ি বারবার যাওয়ার ইচ্ছে আছে এমন লোকজনকে কমিটিতে রাখা হবে। কারণ এ কমিটির সদস্যদের মধ্যেই পোলিং এজেন্ট করা হবে। এ কমিটির সদস্যরা ভোটকেন্দ্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। গত বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়। ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি এ কে এম রহমতুল্লাহ সভায় সভাপতিত্ব করেন। মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের প্রতিটি থানা ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি সাধারণ সম্পাদকরা এতে উপস্থিত ছিলেন। সভায় আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে কেন্দ্রভিত্তিক কমিটিকীভাবে কাজ করবে তার নির্দেশনা দেয়া হয়।

আওযামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ কেন্দ্রভিত্তিক কমিটি সংক্রান্ত প্রশ্নের জবাবে জাগো নিউজকে বলেন,এ কমিটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আওয়ামী লীগের সংশ্লিষ্ট এলাকার বিশ্বস্ত ছেলে-মেয়েদের নিয়ে এ কমিটি গঠনের কথা বলেছি। এরাই হবে ভোটের পাহারাদার। কেউ যদি জাল ভোট বা কোনো কারচুপি করতে চায় তাহলে কেন্দ্রভিত্তিক কমিটির সদস্যরা রুখে দাঁড়াবে। এ কমিটির সদস্যদের প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি এ কে এম রহমতুল্লাহ জাগো নিউজকে বলেন,২০০১ সালে আমরা কেন্দ্রভিত্তিক কমিটিতে তেমন তৎপর ছিলাম না। যে কারণে বিজয় হাত ছাড়া হয়েছিল। এবার আর সে সুযোগ দেয়া হবে না। এ কমিটির সদস্যরা ভোটকেন্দ্র পাহারা দেবে। আওয়ামী লীগ,সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন এবং ১৪ দলের নেতাকর্মী এবং মহিলাদের কমিটিতে রাখার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।