ইসলামী ব্যাংক সেন্ট্রাল হাসপাতালকে ৬ লাখ টাকা জরিমানাজীবন বাঁচাতে কাতারে আশ্রয় নিয়েছেন আমিরাত যুবরাজ!জোট সম্প্রসারণে ‘আপত্তি’ শরিকদেরআমি মনে-প্রাণে একজন ফিলিস্তিনি: ম্যারাদোনাজাপানের ৬ হাজার পরমাণু বোমার সরঞ্জামে আতঙ্কে চীন
No icon

শুধু আইনি লড়াইয়ে খালেদা জিয়ার মুক্তি সম্ভব নয়: মওদুদ

রাজপথে আন্দোলন ছাড়া শুধু আইনি লড়াইয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির সম্ভব নয় বলে মনে করেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এক আলোচনা সভায় এমন মন্তব্য করে তিনি বলেন, আমাদের নেত্রী ইনশাআল্লাহ আমাদের মধ্যে ফিরে আসবেন। যতই কলাকৌশল করা হোক না কেন। আমরা আইনি লড়াই করব, আমাদের আবার রাজপথেও থাকতে হবে। শুধু আইনি লড়াই দিয়ে এই যুদ্ধে জয়লাভ করার সম্ভব হবে বলে আমি মনে করি না। জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দলের উদ্যোগে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে এই আলোচনা সভা হয়।

সংগঠনের সহসভাপতি আবদুল হালিমের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ফজলুর রহমান, স্বনির্ভরবিষয়ক সম্পাদক শিরিন সুলতানা, কেন্দ্রীয় নেতা জয়নাল আবেদীন, মুক্তিযোদ্ধা দলের সাধারণ সম্পাদক সাদেক আহমেদ খান, শাহ আবু জাফর, মিজানুর রহমান মিজান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

বিচার বিভাগ পৃথকীকরণের প্রসঙ্গ টেনে সাবেক আইনমন্ত্রী বলেন, ‘মাজদার হোসেন মামলার মাধ্যমে বিচার বিভাগ পৃথকীকরণে নিশ্চিত করার জন্য সুপ্রিমকোর্ট ৮-১০ বছর ধরে কাজ করে আসছেন। কিন্তু এসকে সিনহা (সাবেক প্রধান বিচারপতি) চলে যাওয়ার পরে নিম্ন আদালতের শৃঙ্খলাবিধির গেজেট হয়ে যাওয়ার পরে বিচার বিভাগ পৃথকীকরণের সুপ্রিমকোর্টের ওই রায়ের কোনো কার্যকারিতা থাকল না। কারণ নিম্ন আদালত এখন সরকারের অধীনে চলে গেছে। তাহলে বিচার বিভাগের স্বাধীনতা থাকে কীভাবে?

বর্তমান সরকারের শাসনামলকে ‘ভয়ংকর’ অভিহিত করে মওদুদ আহমদ বলেন, আমাদের এক বিরাট সংকটকাল চলছে। শুধু বিএনপির জন্য নয়, জাতীয়তাবাদী শক্তিসমূহের জন্য নয়, সারা জাতির জন্য। আমার জীবনে এমন সংকট দেখিনি। অনেক আন্দোলন দেখেছি, অনেক বড় বড় সংকট দেখেছি, মুক্তিযুদ্ধের আগে ও পরে সংকট সময় দেখেছি কিন্তু এ রকম অবস্থা যা বর্ণনা করা যায় না। বাংলাদেশের এখন কোনো সংজ্ঞা খুঁজে পাওয়া যায় না।

আমি মনে করি, সেই ৭৫ সালে সাংবিধানিক একদলীয় শাসনের চাইতে বর্তমানে যে একদলীয় শাসন চলছে সেটা আরও অনেক নিম্নমানের, নিচু স্তরের, অমানবিক এবং ইংরেজিতে বলে ইললেবারেল এবং ইনটলারেন্ট একটা সংস্কৃতি ও সমাজ আমরা ডেভেলপ করেছি। এর চাইতে নেতিবাচক দৃশ্য আমাদের সামনে আসে না। সরকারি খরচ ও সুবিধা নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একদলীয় নির্বাচনী প্রচারণা এবং সরকারের ‘লুটপাট-দুর্নীতি’র কঠোর সমালোচনা করেন তিনি।