রাখাইনে ৬ লাখ রোহিঙ্গা গণহত্যার চরম ঝুঁকিতে : জাতিসংঘজাপান সাগরে উত্তর কোরিয়ার দুই জাহাজ আটক করেছে রাশিয়ার সীমান্ত বাহিনী। মস্কো বলছে, দুটি ছদ্মবেশী জাহাজ তাদের সমুদ্র অঞ্চলে প্রশেব করেছে। জাহাজ দুটির মধ্যে একটি থেকে দেশটির টহলরত জাহাজে হামলা করা হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়। মঙ্গলবার ফেডারেল সিকিউরিটি সার্ভিসে (এএসবি) বরাত দিয়ে তাস নিউজ এ খবর জানায়। উত্তর কোরিয়ার একটি স্কুনার (৪৫ জনেরও বেশি লোক) একটি সীমান্ত টহল জাহাজের পরিদর্শন দলের ওপর সশস্ত্র হামলা চালায়। এতে তিনজন সেনাবাহিনীর সদস্য আহত হয়েছেন।জাবির ঘটনায় শিক্ষকরা লজ্জিত : আরেফিন সিদ্দিকদলে শুদ্ধি অভিযান চলছে : কাদেরছাত্রদলের কাউন্সিলরদের সই সংগ্রহ, সিলেকশন শঙ্কা প্রার্থীদের
No icon

বাদাী ও পিবিআই কর্মকর্তাকে জেরা করতে চান আসামী পক্ষের আইনজীবিঃ নুসরাত হত্যা

ফেনীর সোনাগাজীতে নৃশঃসভাবে পুড়িয়ে হত্যা করেছেন মাদ্রাসা শিক্ষকসহ জড়িত অনেকেই। আর এই খবর দেশের বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক থেকে শুরু করে বিভিন্ন টেলিভিশনেও দেখানো হয়েছে। পুড়িয়ে মারার কথা আসামীগণও আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন। তাতেও আসামী পক্ষের আইনজীবিদের বাদী ও তদন্ত কর্মকর্তাকে বিভিন্ন বিষয়ে জেরা করতে চান। দিন শেষে ফলাফল একটাই হবে কারণ আমরা জানি যেমন কর্ম তেমন ফল।

পিবিআই এর ডিআইজি বনজ কুমার মজুমদারকে এ মামলায় কোর্ট সাক্ষী হিসেবে হাজির করতে আসামির আবেদন খারিজ করে দেন ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মামুনুর রশিদ। এদিকে আসামির আইনজীবীদের আবেদনের কারণে সাক্ষী নিশাত সুলতানা ও নাসরিন সুলতানা গতকাল রোববার আদালতে হাজির হন। আসামির আইনজীবী আহসান কবীর বেঙ্গল গতকাল মামলার ২ নম্বর সাক্ষী নিশাত সুলতানাকে জেরা করেন। আইনজীবীর সব প্রশ্নের না সূচক উত্তর দেন নিশাত। নিশাত সুলতানার জেরা হলেও নাসরিন সুলতানাকে গতকাল জেরা করা হয়নি।

মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত হত্যা মামলায় ৯২ জন সাক্ষীর মধ্যে তদন্তকারী কর্মকর্তা ও পিবিআইয়ের পরিদর্শক মো. শাহ আলমসহ ৮৭ জনের সাক্ষ্য ও জেরা শেষ হয়েছে। আজ বাদী মাহমুদুল হাসান নোমান (নুসরাতের ভাই) ও তদন্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ শাহ আলমকে আবার জেরা করা হবে। এর আগে মোহাম্মদ শাহ আলমকে আসামির আইনজীবীরা আট কার্যদিবস জেরা করেন। গত ৬ এপ্রিল সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার প্রশাসনিক ভবনের ছাদে নিয়ে নুসরাতের হাত-পা বেঁধে গায়ে কেরোসিন ঢেলে দেয় দুর্বৃত্তরা। এরপর দেশলাই দিয়ে আগুন লাগিয়ে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। অগ্নিদগ্ধ নুসরাত ১০ এপ্রিল ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।