অধ্যক্ষ সিরাজের পক্ষে আদালতে দাঁড়াননি কোনো আইনজীবীঢাকার ৮৪ শতাংশ বহুতল ভবনই ত্রুটিপূর্ণরাজস্ব কর্মকর্তা হিসেবে আউট সোর্সিংয়ে ১০ হাজার শিক্ষার্থী নিয়োগসুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা বেড়েছেবেশি দামে টিকিট বিক্রি : হানিফ এস আর ট্রাভেলসকে জরিমানা
No icon

কে এই নুরু?

২৮ বছর পর অনুষ্ঠিত হওয়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনে ভিপি পদে জয়লাভ করেছেন নুরুল হক নুর। নির্বাচনে অন্য সব পদে ছাত্রলীগের প্যানেল নিরঙ্কুশ জয় পেলেও সর্বোচ্চ পদে চমক দেখিয়েছেন বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ আন্দোলনের নেতা নুর। চাকরিতে কোটা ব্যবস্থার সংস্কারের দাবিতে গড়ে ওঠা আন্দোলনের প্লাটফর্ম বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের প্যানেল থেকে নির্বাচন করে তিনি বিজয়ী হয়েছেন বিপুল ভোটে। তার প্রাপ্য ভোট ছিল ১১ হাজার ৬২টি। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন পেয়েছেন ৯ হাজার ১২৯ ভোট। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর চেয়ে ১৯৩৩ ভোট বেশি পেয়ে জয়ী হন নুর। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র নুরু বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের শুরুতে তেমন পরিচিত ছিলেন না। মূলত দেশব্যাপী আলোচিত কোটা সংস্কার আন্দোলনে যুক্ত হওয়া তাকে ব্যাপক পরিচিতি এনে দিয়েছে। ওই তিনি শিক্ষার্থীদের সংগঠিত করেন। হাসান আল মামুন, রাশেদসহ অন্য সহপাঠীদের নিয়ে গড়ে তোলেন সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ। ওই সময় আন্দোলনকারী সংগঠনের নাম দেয়া হয় বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ। এ সংগঠনের যুগ্ম আহ্বায়কও করা হয় তাকে। পটুয়াখালীতে জন্ম নেয়া নুর কোটা সংস্কার আন্দোলন করতে গিয়ে হামলা, মামলার পর কারাবরণও করেন। এমনকি ডাকসু নির্বাচন চলাকালে নির্বাচনে অনিয়মের প্রতিবাদ করতে গিয়ে ছাত্রলীগের নারী প্রার্থীদের মারধরের শিকার হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। সোমবার দিবাগত রাত সোয়া ৩টার পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবনে যখন উপাচার্য ড. আখতারুজ্জামান বিজয়ী হিসেবে নুরুর নাম ঘোষণা করছিলেন তখনও আহত নুরু হাসপাতালের বিছানায়। ভিপি নির্বাচিত হওয়ার পর নুরুল হক গণমাধ্যমকে বলেন, এ রকম নির্বাচন আমাদের কারোরই প্রত্যাশা ছিল না। ২৮ বছর পর এই নির্বাচন হয়েছে। সারা দেশের মানুষ তাকিয়ে ছিল। জাতীয় নির্বাচনের পর নির্বাচনী ব্যবস্থার ওপর মানুষের যে অনাস্থার সৃষ্টি হয়েছি-আমরা ভেবেছিলাম সকলের কাছে গ্রহণযোগ্য ও সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে সেখানে আশার আলোর সঞ্চার করা হবে। কিন্তু প্রশাসনের সহায়তায় ক্ষমতাসীন দলের ছাত্র সংগঠন যে কারচুপি করেছে তা শুধু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নয় পুরো দেশকে হতাশ করেছে। আমর মনে করি ১১ মার্চের নির্বাচন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য একটি কলঙ্কজনক অধ্যায়। তবে নুরুকে ভিপি হিসেবে মানছে না ছাত্রলীগ। তাদের অভিযোগ, তিনি শিবিরের এজেন্ট। ভিপি পদে নুরুলের নাম ঘোষণার প্রতিবাদে উপাচার্যের বাসভবন ঘেরাও করে ছাত্রলীগ। তারা পুনরায় ডাকসু নির্বাচনের দাবি জানিয়েছেন।