বর্জ্য অপসারণে কতটা প্রস্তুত ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন?ঈদের খুশি নেই, ছেলের কবরের পাশে বসে কাঁদছেন রিফাতের মানিশ্ছিদ্র নিরাপত্তায় প্রস্তুত শোলাকিয়াকোরবানির পশু জবাই ও মাংস প্রস্তুতে ২৫% খরচ বহন করবে ডিএনসিসিঈদের সকালে সর্বস্তরের জনগণের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন প্রধানমন্ত্রী
No icon

বগুড়ায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ২

বগুড়ার শেরপুর উপজেলায় দুদল সন্ত্রাসীর মধ্যে বন্দুকযুদ্ধে দুই ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। তারা হলেন- ধনেশ ওরফে সুকুমার সরকার (৩৮) ও আফজাল হোসেন (৫৫)। মঙ্গলবার রাত দেড়টার দিকে উপজেলার ভবানীপুর বাজারের পূর্বপাশে ব্রিজের ওপর এ ঘটনা ঘটে। পুলিশের দাবি, নিহতদের মধ্যে ধনেশ ওরফে সুকুমার সরকার পেশাদার ডাকাত এবং আফজাল হোসেন পূর্ব বাংলার কমিউনিস্ট পার্টির (সর্বহারা) সক্রিয় সদস্য। দেশের বিভিন্ন থানায় আফজালের ২০ ও ধনেশের নামে ১১ মামলার খোঁজ পাওয়া গেছে। ঘটনাস্থল থেকে একটি ওয়ান শুটারগান, একটি পাইপগান ও দুই রাউন্ড কার্তুজ (বন্দুকের গুলি) উদ্ধার করেছে পুলিশ।

নিহতরা সন্ত্রাসীরা হলেন- গাইবান্ধা সদরের কাঁচদহ গ্রামের মন্টু সরকারের ছেলে ডাকাত ধনেশ ও নাটোরের সিংড়া উপজেলার বামিহাল গ্রামের রজব আলীর ছেলে সর্বহারা আফজাল হোসেন।

বুধবার সকালে বগুড়া সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) সনাতন চক্রবর্তী জানান, রাত দেড়টার দিকে শেরপুর উপজেলার ভবানীপুর বাজারের পূর্বপামের ব্রিজের ওপর দুদল সন্ত্রাসীর গোলাগুলি চলছিল।

এ সংবাদ পেয়ে তিনি, শেরপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গাজিউর রহমান, শেরপুর থানার ওসি হুমায়ুন কবির ও টহল পুলিশের দল ঘটনাস্থলে যান।

সেখানে ধনেশ ও আফজাল হোসেনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়। দ্রুত তাদের উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

তাদের মরদেহ ওই হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

নিহতদের মধ্যে ধনেশ পেশাদার ডাকাত এবং আফজাল হোসেন পূর্ব বাংলার কমিউনিস্ট পার্টির (সর্বহারা) সক্রিয় সদস্য।

দেশের বিভিন্ন থানায় আফজালের নামে ২০ও ধনেশের নামে ১১ মামলার খোঁজ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে বগুড়ার শেরপুর থানায় পৃথক মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) সনাতন চক্রবর্তী।