কারওয়ান বাজারে এক ডাবের দাম ১০০ টাকাবিক্ষোভকারীদের সঙ্গে নতুন করে আলোচনায় বসার অঙ্গীকার হংকং প্রশাসকেরযৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগে স্বামী আটকচান্দিনায় কাভার্ডভ্যানকে মাইক্রোর ধাক্কা, নিহত ২আজ থেকে ৩ সহস্রাধিক রোহিঙ্গার সাক্ষাৎকার শুরু
No icon

সেন্টমার্টিনে ১ হাজার পর্যটক আটকা

বৈরী আবহাওয়ার কারণে টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌপথে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল বন্ধ রেখেছে কর্তৃপক্ষ। এতে সেন্টমার্টিনে বেড়াতে যাওয়া এক হাজার পর্যটক আটকা পড়েছেন। বুধবার সকাল থেকে জাহাজ চলাচল বন্ধ রাখা হয়। বৈরী আবহাওয়ার কারণে সমুদ্রবন্দর ও উপকূলীয় এলাকায় ৩নং সতর্ক সংকেত জারি রয়েছে। এ অবস্থায় টেকনাফ থেকে সেন্টমার্টিন যায়নি পর্যটকবাহী কোনো জাহাজ। স্থানীয় সূত্র জানায়, সোম ও মঙ্গলবার টেকনাফের দমদমিয়া জেটিঘাট থেকে জাহাজযোগে সেন্টমার্টিন বেড়াতে যান কয়েক হাজার পর্যটক। সেখানে রাতযাপন করতে প্রায় এক হাজারের মতো পর্যটক থেকে যান। বৈরী আবহাওয়ার কারণে সমুদ্রবন্দর ও উপকূলীয় এলাকায় ৩নং সতর্কতা জারি করায় জাহাজ চলাচল বন্ধ করে দেয় কর্তৃপক্ষ। এতে সেন্টমার্টিনে অবস্থান করা এক হাজার পর্যটক আটকা পড়েন।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. রবিউল হাসান বলেন, ৩নং সর্তক সংকেত থাকার কারণে পর্যটকবাহী জাহাজ ও নৌযানকে টেকনাফ থেকে ছেড়ে না যাওয়া এবং মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সাবধানে চলাচল করতে বলেছে আবহাওয়া অধিদফতর।

তিনি আরও বলেন, বৈরী আবহাওয়ার কারণে সেন্টমার্টিন নৌপথে জাহাজসহ নৌযান চলাচল বন্ধ রাখা হয়। ফলে সেন্টমার্টিনে অবস্থান করা পর্যটকরা আটকা পড়েছেন। তাদের খোঁজখবর রাখা হচ্ছে। আবহাওয়া পরিস্থিতি ভালো হলে তাদের ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা করা হবে।

কক্সবাজার আবহাওয়া কার্যালয়ের আবহাওয়াবিদ মো. শহীদুল ইসলাম বলেন, বৈরী আবহাওয়ার কারণে উত্তর বঙ্গোপসাগর সংলগ্ন উপকূলীয় এলাকার ওপর দিয়ে ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। তাই চট্টগ্রাম, মংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দর এবং কক্সবাজারকে ৩নং স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। বঙ্গোপসাগর ও নাফ নদী উত্তাল। এ অবস্থায় টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌপথে পর্যটকবাহী জাহাজসহ সব ধরনের নৌযান চলাচল বিপজ্জনক। তাই মাছ ধরার ট্রলারসহ সব ধরনের নৌযানকে নিরাপদ স্থানে থাকতে বলা হয়েছে। আগামীকাল বৃহস্পতিবারও এ সতর্ক সংকেত বলবৎ থাকবে।

এদিকে, মঙ্গলবার রাত থেকে বুধবার বিকেল পর্যন্ত কক্সবাজারে বৃষ্টি হচ্ছে। থেমে থেমে বর্ষণ অব্যাহত থাকায় বুধবার সকাল থেকে সেন্টমার্টিন নৌপথে পর্যটকবাহী কোনো জাহাজ ছেড়ে যায়নি।

সেন্টমার্টিন হোটেল ও কটেজ মালিক সমিতির সভাপতি মুজিবুর রহমান বলেন, গত সপ্তাহ থেকে আবহাওয়া পর্যটনের অনুকূলে নেই। তাই আগের মতো পর্যটক রাতযাপন না করে দিনে এসে দিনেই ফিরছেন। এরই মধ্যে সেন্টমার্টিনে অবস্থান করা এক হাজার থেকে ১২০০ পর্যটক আটকা পড়েছেন। জাহাজ চলাচল বন্ধ থাকায় আটকা পড়েছেন তারা।