নৌকার মাঝি বাছাইয়ে চুলচেরা বিশ্লেষণে আ.লীগউৎসব আর শঙ্কায় বিএনপির মনোনয়ন কার্যক্রমপ্রিন্স সালমানই খাশোগিকে হত্যার নির্দেশ দিয়েছিলেন : সিআইএকে হবেন প্রধানমন্ত্রী: উত্তরে যা বললেন ড. কামালবাংলাদেশে রাজনীতিকদের ওপর দমন-পীড়নের নিন্দা ইইউ পার্লামেন্টের
No icon

বাংলাদেশের উন্নয়নে অংশীদার হতে চাই: সৌদি যুবরাজ

সৌদি যুবরাজ, উপ-প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ বিন সালমান বিন আবদুল আজিজ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে বাংলাদেশের ব্যাপক উন্নয়নের উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করে বলেছেন, তিনিও এ উন্নয়নের অংশীদার হতে চান। বুধবার রাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সালমানের বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে সৌদি যুবরাজকে উদ্ধৃতি করে পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক বলেন, তিনি বলেছেন, সাম্প্রতিকালে বাংলাদেশের যে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে, সে সম্পর্কে আমি অবগত আছি এবং এই উন্নয়নের বিকাশে আমিও তার অংশীদার হতে চাই। খবর বাসসের শহীদুল হক বলেন, সালমান তার কর্মকর্তাদের বাংলাদেশকে দেখে আসা এবং বাংলাদেশে উন্নয়নের কী ঘটছে তা পর্যবেক্ষণে বিশেষজ্ঞ পাঠানোর কথা বলেছেন। তিনি বলেন, তখন আমরা সিদ্ধান্ত নেব কোন কোন ক্ষেত্রে বাংলাদেশে বিনিয়োগ প্রয়োজন।

পররাষ্ট্র সচিব বলেন, গত রাতে রিয়াদের রয়্যাল প্যালেসে অত্যন্ত উষ্ণ ও আন্তরিক পরিবেশে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় প্রায় আধা ঘণ্টা স্থায়ী বৈঠকে তিনি (সালমান) খুবই উৎফুল্ল ছিলেন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যখন যুবরাজকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান, তখন তিনি (যুবরাজ) অত্যন্ত উষ্ণতার সঙ্গে এই আমন্ত্রণ গ্রহণ করেন এবং বলেন, আমি শিগগিরই বাংলাদেশ সফর করবো।

শেখ হাসিনা মুসলিম উম্মাহর ঐক্যের ওপর গুরুত্বারোপ করে বলেন, আমরা আমাদের নিজেদের মধ্যে কোনো ঝগড়া-বিবাদ করব না, বরং আমরা আমাদের যে কোনো সমস্যা নিজেরাই সমাধান করব।

প্রধানমন্ত্রী যখন জানান, ২০০৯ সাল থেকে এ পর্যন্ত তিনি ৬ বার সৌদি আরব সফর করেছেন, তখন সৌদি যুবরাজ তাকে (শেখ হাসিনা) হাফ সৌদি বলে বর্ণনা করেন।

এটিও আপনার বাড়ি একথা উল্লেখ করে সৌদি যুবরাজ বলেন, আপনি অনেকবার সৌদি আরব সফর করেছেন, তাই আপনি হাফ সৌদি হয়ে গেছেন।

মুসলিম উম্মাহর মধ্যে শান্তি বজায় রাখা প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে একমত পোষণ করে যুবরাজ বলেন, আমরাও এটা চাই এবং আমরা সবাই একত্রে শান্তিতে বসবাস ও উন্নয়ন করতে চাই।

যুবরাজ বলেন, প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে বাংলাদেশের সঙ্গে সৌদি আরবের চমৎকার সহযোগিতার সম্পর্ক রয়েছে। বিভিন্ন ক্ষেত্রে এই সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে এবং ভবিষ্যতে আরো তা বৃদ্ধি পাবে।

পররাষ্ট্র সচিব বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সালমানের বৈঠকে মূলত দুটি বিষয়ের ওপর গুরুত্ব দিয়ে আলোচনা করা হয়। এর একটি হচ্ছে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ এবং অপরটি হচ্ছে প্রতিরক্ষা।

শহীদুল হক বলেন, আমরা আশা করছি বিভিন্ন ক্ষেত্রে সহযোগিতা বৃদ্ধিতে সৌদি আরবের একটি উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধিদল খুব শিগগির বাংলাদেশ সফর করবেন এবং দেশটি বাংলাদেশে বড় ধরনের বিনিয়োগ করবে।

তিনি বলেন, সৌদি আরব বাংলাদেশে আরো বিনিয়োগ করার জন্য খুবই উৎসাহী।

সৌদি বাদশাহর আমন্ত্রণে চারদিনের সফরে সৌদি আরবে অবস্থানরত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার এশার নামাজের পর মক্কায় পবিত্র ওমরাহ পালন করবেন। শুক্রবার সকালে তিনি দেশের উদ্দেশে রওনা হবেন।