সরকার সিদ্দিকুরকে উন্নত চিকিৎসার জন্য চেন্নাই পাঠাবেবরিশাল ও বরগুনার ডিসি প্রত্যাহারসিদ্দিকুরকে বিদেশে পাঠানো হবে : কাদের৫৭ ধারা সাংবাদিক হয়রানির জন্য নয় : প্রধানমন্ত্রী তারিক সালমানের ঘটনায় বরিশাল ও বরগুনার ডিসি প্রত্যাহার
No icon

গাজীপুরের মেয়র মান্নান ফের বরখাস্ত

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র অধ্যাপক এমএ মান্নানকে তৃতীয়বারের মতো বরখাস্ত করেছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। বৃহস্পতিবার স্থানীয় সরকার,পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের উপ সচিব মো.শহীদুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানা গেছে। এতে সিটি কর্পোরেশনের হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা মো.গোলাম কিবরিয়াকে সাময়িক বরখাস্ত করার কথাও উল্লেখ করা হয়েছে। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, মেয়র অধ্যাপক এমএ মান্নান দায়িত্ব পালনকালে সিটি কর্পোরেশনের ত্রাণ ও দরিদ্র তহবিলের আয়  কোন ব্যাংক হিসাবে না রেখে নিয়ম বহির্ভূতভাবে ক্যাশ ইন হ্যান্ড হিসাবে হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা গোলাম কিবরিয়ার কাছে রাখেন। তারা পরষ্পর যোগসাজশে ক্ষমতার অপব্যবহার, প্রতারণা ও অপরাধমূলক বিশ্বাস ভঙ্গ ও টাকা গ্রহীতার স্বাক্ষরবিহীন ৯৯৯টি ভূয়া ভাউচার তৈরি করে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ৪৯ লাখ ১ হাজার ৮৪৮ টাকা আত্মসাৎ করেন- এই মর্মে দুদক গত বছরের ১২ জুন জয়দেবপুর থানায় মামলাটি দায়ের করে। ওই মামলায় গত ১২ জানুয়ারি গাজীপুরের বিশেষ জজ আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে দুদুক। পরে ১৮ জানুয়ারি ওই অভিযোগপত্রটি ওই আদালতে গৃহীত হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় মেয়র অধ্যাপক এমএ মান্নান ও হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তাকে সাময়িক ভাবে বরখাস্ত করেছে বলে প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৩ সালের ৬ জুলাই নবগঠিত গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিপুল ভোটে মেয়র নির্বাচিত হন বিএনপি নেতা ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান।
 
যাত্রীবাহী বাসে পেট্রলবোমা হামলার মামলায় ২০১৫ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় মেয়র এমএ মান্নানকে ঢাকার বারিধারার বাসভবন থেকে গ্রেফতার করা হয়।

এর পর একে একে তার বিরুদ্ধে সব মিলিয়ে ৩০টি মামলা দায়ের করা হয়। এসব মামলায় প্রায় ২৮ মাস কারাগারে ছিলেন তিনি।

পরে ৩০টি মামলার সব কয়টিতে জামিন পান মেয়র মান্নান। এরপর আদালতের নির্দেশে গত ১৮ জুন ফের মেয়রের দায়িত্ব গ্রহণ করেন তিনি।